দাঁতের ব্যাথার ট্যাবলেট

রোগ ও সমস্যা

শরীর সুস্থ রাখার নামই স্বাস্থ্য। আমাদের শরীর কিংবা মন দুটোই যদি ভালো না থাকে তাহলে স্বাস্থ্য ঠিক থাকে না। আর আমাদের কে সুস্থ রাখতে বেশি ভূমিকা পালন করে আমাদের দাঁত কারণ আমরা দাঁত দিয়ে চিবিয়ে খাদ্য খায়। তো আসুন আমরা দাঁতের যত্ন ও চিকিৎসা বিষয়ে বিস্তারিত ভাবে জেনে নিই এবং দাঁতের ব্যথার ওষুধ কি সেটাও জেনে নিই।

image

আশা করি সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়লে দাঁতের যত্ন, দাঁতের মাড়ি ফুলে গেলে করণীয়, দাঁতের ব্যাথার ট্যাবলেট সহ আরো গুরুত্বপূর্ণ ট্রিক্স অ্যান্ট ট্রিকস রয়েছে যা আপনাদের জন্য দাঁতের যত্নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

সূচিপত্র: দাঁতের ব্যাথার ট্যাবলেট (teeth)

দাঁত ও মাড়ির (teeth) পরিচর্যা

সুস্থ দাঁতের জন্য দাঁতের নিয়মিত পরিচর্যা প্রয়োজন। আপনার দাঁত সুস্থ কি? আপনি কি নিয়মিত দাঁতের পরিচর্যা করে থাকেন? যদি করে থাকেন তাহলে ভালো। আর যদি না করে থাকেন তবে আর বিলম্ব না করে আজ থেকেই নিয়মিত দাঁতের পরিচর্যা শুরু করুন। কারণ আপনি দাঁতের যত্ন নিলে দাঁত আপনার যত্ন নিবে।

একটা কথা মনে রাখবেন-আমরা দাঁত দিয়ে কিছু খাই বলেই নিয়মিত দাঁত পরিষ্কার করা দরকার অর্থাৎ খাওয়ার সময় খাদ্য কণা দাঁতের মাড়িতে এবং দুই দাঁতের মাঝে লেগে থাকে। তাই খাওয়ার পর পরই দাঁত পরিষ্কার করা বা মাজা অবশ্যই প্রয়োজন।

আরো পড়ুন: মশার কামড় থেকে বাঁচার ক্রিম

অর্থাৎ আমরা যতবার খাদ্য গ্রহণ করি ততবারই দাঁত পরিষ্কার করা বা মাজা প্রয়োজন। তবে প্রতিবার খাওয়ার পর যদি কারো পক্ষে দাঁত মাজা সম্ভব না হয়, তবে খাওয়ার পর কুলিকুচি করে নিবেন এবং রাতে খাওয়ার পর অবশ্যই দাঁত মাজতে হবে।

দাঁত মাজার সঠিক পদ্ধতি

দাঁত teeth মাজার জন্য ব্রাশটি উপরে নিচে চালনা করতে হয়, উপরের মাড়ির জন্য ব্রাশটি ধরে মাড়ির থেকে নিচের দিকে টানুন। নিচের মাড়ির জন্য ব্রাশটি মাড়ির থেকে উপরের দিকে টানুন। এইভাবে দাঁতের বাহির ভীতর উভয় দিকেই ১৫ থেকে ২০ বার ব্রাশ চালনা করুন। তবেই আপনার দাঁত মাজার কাজটি সম্পন্ন হবে।

অনেকে লম্বা লম্বি ভাবে মুখের ডানে বামে ব্রাশ চালনা করে দাঁত মেজে থাকেন। এতে করে দাঁত পরিষ্কার হয় না। দুই দাঁতের মাঝে তাতে ব্রাশ লাগে না। আর খাদ্য কণা দুই দাঁতের মাঝে লেগে থাকে। এতে দাঁত মেজেও আপনার দাঁত পরিষ্কার হয় না। তাই উপরের নিয়মে ব্রাশ চালনা করে দাঁত মাজুন।

দাঁতের যত্ন (teeth)

১. টুথপেস্ট (পেপসুডেন্ট-জি, মেরিল, ক্লোজআপ, পেপজেল, ডই-ফাইভ, কোলগেট, সেন সুডাইন ইত্যাদি) এবং ব্রাশ দিয়ে দাঁত মাজা সবচেয়ে বিজ্ঞানসম্মত।

২. মাটি, ছিলি (ছাই), আঙ্গার, গুল, আরো অনেক কিছু দিয়ে আমরা দাঁত মাজি এগুলা আমাদের দাঁতকে নষ্ট করে দেয়

৩. তবে নিম, জৈতুন, খেজুর গাছের ডাল বা ওই ধরনের ডাল বা মেসওয়াক দিয়ে দাঁত মাজতে পারেন। এগুলোকে কয়েক দিন পর পর পরিবর্তন করতে হয় এবং এতে প্রত্যেক বার টুথপেস্ট দিয়ে মাজতে হয়।

আরো পড়ুন: জ্বরের এন্টিবায়োটিক ট্যাবলেট এর নাম - জ্বরের দোয়া

৪. বর্তমানে বাজারে কিছু অ্যান্টিসেফটিক মাউথওয়াস গার্গল বাজারে পাওয়া যায়। যেমন: ওরালন, ওরা কেয়ার, বায়োডিন, লিস্টার, প্রোভিসেপ ইত্যাদি দিয়ে দৈনিক তিনবার (সকালে নাস্তার পর, দুপুরে একবার এবং রাতে সবার আগে কুলি করা উত্তম বলে প্রমাণিত)

৫. এক্ষেত্রে কুসুম গরম পানিতে লবণ মিশিয়েও কুলি করা যেতে পারে।

দাঁতের মাড়ি ফুলে গেলে করণীয়

দাঁতের মাড়ি ফোলা, এটা আমাদের কমবেশি সকলেরই হয় কিন্তু এটা আমাদের হওয়ার কারণ, দাঁত পরিষ্কার না থাকা কিংবা ভিটামিনের অভাবে এটা হয়ে থাকে, এটা দ্রুত ভালো হওয়ার জন্য আমরা কিছু টিপস জানব।

১. পানি এবং লবণ মিশিয়ে কুলিকুচি করা ২. এক চামচ হলুদ গুঁড়া, একটু সরিষার তেল ভালোভাবে মিশিয়ে, নরম করে নিতে হবে, এরপর একটু টুথপেস্ট ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে ভালোভাবে মিক্স হয়ে গেলে, আঙুলের সাহায্যে ৫ থেকে ৬ মিনিট ভালোভাবে ফোলা জায়গাটা পরিষ্কার করে নিতে হবে। ইনশাআল্লাহ দু-এক দিনের ভিতরে ভালো হয়ে যাবে।

দাঁতের মাড়িতে ক্যান্সারের লক্ষণ

দাঁতের মাড়িতে ক্যান্সার হওয়ার অনেকগুলো কারণ যেমন: ধুমপান করা, ভেজাল খাদ্য খাওয়া, তামাক গ্রহণ করা ইত্যাদি বিষয়ে ক্যান্সার হতে পারে। আমাদের দাঁত কে সুরক্ষা রাখতে হলে এগুলো অবশ্যই আমাদেরকে বর্জন করতে হবে।

image

আরো পড়ুন: ইনফ্লুয়েঞ্জা কি - influenza treatment

‌দাঁতের ব্যাথার ট্যাবলেট চিকিৎসা

আপনার কি প্রচুর পরিমাণে দাঁত ব্যথা তবে এই ট্যাবলেটটি সেবন করুন। এই ট্যাবলেট টি সেবনের মাধ্যমে আপনার দাঁত ব্যথা সম্পূর্ণরূপে সেরে যাবে ইনশাআল্লাহ। এই ট্যাবলেটটির নাম হচ্ছে- Tory টরী ট্যাবলেট এই ট্যাবলেটটি তিনটি ক্যাটাগরিতে পাওয়া যায়। Tory Tablet 60mg .Tory Tablet 90mg. Tory Tablet 100mg.

image
দাঁতের ব্যাথার ট্যাবলেট

ডাক্তারের পরামর্শে প্রয়োজনমতো খেতে পারেন।

ঘরোয়া চিকিৎসা

হঠাৎ দাঁতে ব্যথা বা যন্ত্রণা শুরু হলে বাসায় সব সময় ওষুধ ও থাকে না, এবং ডাক্তারের কাছে যাওয়াও সম্ভব হয় না কিন্তু দাঁতের এই ব্যথা কমিয়ে ফেলার জন্য একটা ঘরোয়া চিকিৎসা জানবো।

প্রথমে ৬ থেকে ৭ টা পেয়ারা পাতা নিব, তারপর পাতাগুলো পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নেব, তারপর একটা পাত্রে এক পোয়া মতো পানি নেব, তারপর পানিতে পাতাগুলো দিয়ে দেব, তারপর এক চিমটি লবণ কিংবা পরিমাণ মতো লবণ দিয়ে দেব, তারপর পাঁচ মিনিট ভালোভাবে পানি সহ পাতাগুলো ফুটিয়ে নেব, তারপর পরিষ্কার একটি ছাকনা দিয়ে পানিটাকে ছেঁকে নেব, এরপর পানিটাকে কুসুম কুসুম অবস্থায় ৫ থেকে ১০ মিনিট ভালোভাবে মুখে নিয়ে কুলিকুচি করব। এরপর ইনশাআল্লাহ দাঁতের ব্যথা কমে যাবে।

শেষ কথা

আপনাদের দাঁতের যত্নে বা সমস্যা সমাধানে এই কনটেন্টটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা করি, ইনশাআল্লাহ।

ধন্যবাদ-Thanks

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

আর আইটি ফার্মের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url