কলার উপকারিতা ও অপকারিতা

কলা একটি সুস্বাদু ফল এবং পুষ্টিতে ভরপুর বিজ্ঞানীরা ( banana ) কলাকে বলে (সুপার ফুড) কেন জানেন? এতে রয়েছে বিভিন্ন রকমের ভিটামিন যেমন: ভিটামিন সি (Vitamin C), ভিটামিন এ (Vitamin A), ভিটামিন ডি (Vitamin D), ভিটামিন বি-কমপ্লেক্স (Vitamin B-complex), ভিটামিন ই (Vitamin E), ভিটামিন বি-১, ভিটামিন বি-২, ভিটামিন বি-৬, ভিটামিন বি-১২, নিয়াসিন, ফোলিক অ্যাসিড, প্যান্থোথেনিক এসিড ইত্যাদি।

image
কলার উপকারিতা ও অপকারিতা

আমাদের জন্য কলার উপকারিতা ও অপকারিতা সম্পর্কে কিছু গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টগুলো আলোচনা করা হবে, আশা করি আপনারা এ বিষয়গুলো জানার মাধ্যমে উপকৃত হবেন ইনশাল্লাহ।

পেজ সূচিপত্রঃ কলার উপকারিতা ও অপকারিতা

কলা

আমাদের দেশে জন্য কলা খুব সহজলভ্য একটি খাবার কলাতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালরি এবং আরো অন্যান্য ভিটামিন পাওয়া যায় যেগুলো নিচে আলোচনা করা হবে। কলা আমাদের জন্য খুবই উপকারী একটি ফল। এমনকি শারীরিক কিছু সমস্যার জন্য কলা খাওয়ার মাধ্যমে উপকৃত হওয়া যায়। চলুন তাহলে জেনে নেই কলার উপকারিতা ও অপকারিতার মধ্যে পুষ্টিগুণ গুলো কি কি।

কলার উপকারিতা পুষ্টিগুণ গুলো কি কি

কলা খাওয়ার মাধ্যমে আমরা অনেকগুলো ভিটামিন পেয়ে থাকি যেগুলো আমাদের শরীরে উন্নতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে যেমনঃ

ভিটামিন সি (Vitamin C): কলাতে ভিটামিন সি পাওয়া যায়। ভিটামিন সি আমাদের রক্তের ক্যাপিলারি প্রতিরোধ নিরাপত্তা বৃদ্ধি করে এবং শরীরের রোগ প্রতিরোধ করতে সহায়তা করে।

পটাশিয়াম (Potassium): কলাতে পটাশিয়াম পাওয়া যায়। যা আমাদের মস্তিষ্কের বিকাশ করে এবং স্বাস্থ্য জন্য অনেক উপকারী শুধু তাই না হৃদরোগ প্রতিরোধে কলার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

আরো পড়ুন: কমলা খাওয়ার উপকারিতা এবং অপকারিতা

ফোলেট (Folate): সন্তানের জন্য ফোলেট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে যেমন প্রজনন সমস্যা সমাধানে, স্বাস্থ্য পরিচর্যা, এই সমস্যাগুলির প্রতিরোধে কলায় থাকা ফোলেট নামক ভিটামিন সাহায্য করে।

ভিটামিন এ (Vitamin A): আপনারা অনেকেই জানেন চোখের জন্য ভিটামিন এ খুবই প্রয়োজন সেজন্য আমরা ছোট মাছ খাই। কলাতেও ভিটামিন এ পাওয়া যায়, মানসিক স্থিতি চক্ষু স্বাস্থ্য জন্য অনেক উপকারী।

ক্যালসিয়াম (Calcium): হাড়, দাঁত, স্বাস্থ্য, এসবের জন্য ক্যালসিয়াম আমাদের খুবই প্রয়োজন।ক্যালসিয়ামের অভাবে বিভিন্ন সমস্যা হয় হাঁটু , মাঞ্জা ইত্যাদি। এবং যক্ষ্মার প্রতিরোধে অনেকটা ভূমিকা পালন করে কলা।

প্রোটিন (Protein): প্রোটিন শরীরে শারীরিক উন্নতিতে ভূমিকা রাখে এবং ওজন বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

ফাইবার (Fiber): কলা থেকে প্রচুর পরিমাণে ফাইবার  পাওয়া যায়।

আরো পড়ুন: পেঁপে খাওয়ার উপকারিতা

পাকা কলায় প্রতি 100 গ্রামে কি পরিমান পুষ্টি থাক

উপাদান পরিমাপ
খনিজ পদার্থ ৬২.৭ গ্রাম
আঁশ ০.৯ গ্রাম
আমিষ ০.৪ গ্রাম
ভিটামিন সি ০.৫ মিলিগ্রাম
চর্বি ৭.০ গ্রাম
ক্যালসিয়াম ০.৮ গ্রাম
লৌহ ১৩.০ মিলিগ্রাম
ভিটামিন বি-১ ০.৯ মিলিগ্রাম
ভিটামিন বি-২ ০.১ মিলিগ্রাম
খাদ্য-শক্তি ২৪ মিলিগ্রাম

কলার উপকারিতা

কলা থেকে আমরা যেসব ভিটামিন গুলো পেয়ে থাকি প্রত্যেকটা ভিটামিন আমাদের জন্য প্রয়োজন। সুস্থতা অনেক বড় একটি নেয়ামত আপনি যদি সুস্থ না থাকেন তাহলে আপনার কোন কিছু ভালো লাগবে না, নিঃসন্দেহে কলা একটি পুষ্টিকর ফল।

আরো পড়ুন: লেবুর উপকারিতা ও অপকারিতা

পুষ্টিবিদগণের পরামর্শ যারা বডি ফিটনেস ঠিক রাখতে চাই এবং শারীরিক শক্তি বৃদ্ধি করতে চাই তাদের জন্য কলা খাওয়ার পরামর্শ দেন। এবং সৌন্দর্য বৃদ্ধিতে কলার যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে।

কলা আমাদের জন্য হতে পারে একটি লাকি ফল কেননা কলার দাম কম এবং কলা বারোমাস পাওয়া যায়। অনেকে মনে করে কলা খেলে স্বাস্থ্য বেড়ে যাবে কিন্তু আসলে কলা খেলে বডি ফিটনেস ঠিক রাখা সম্ভব। আমরা কলা থেকে পাওয়া পুষ্টিগুলো সম্পর্কে জেনেছি তা আমাদের ভুল ধারণা গুলো ভেঙ্গে দিবে।

কলার অপকারিতা 

কলার অপকারিতা খুব একটি বেশি না তবে উপকারিতার চাইতে অপকারিতা কম। আমরা জানি কোন কিছুই অতিরিক্ত ভালো না।

আরো পড়ুন: আপেল সিডার ভিনেগার কোনটা ভালো

যাদের কলাতে এলার্জি আছে তারা কলা থেকে একটু দূরে থাকে ভালো😀 এবং কলা খেয়ে সমস্যার সম্মুখীন হলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

শেষ কথা

আশা করি কলার উপকারিতা ও অপকারিতা এবং পুষ্টিগুণ সম্পর্কে ক্লিয়ার একটি ধারণা তৈরি হয়েছে। আপনার কোন প্রশ্ন থাকলে কমেন্ট করে জানাতে পারেন আর আমি আমার রিসার্চ অভিজ্ঞতা থেকে আপনাদেরকে বলবো অবশ্যই যদি সম্ভব হয় প্রতিদিন এক থেকে দুইটি কলা প্রতিদিন সকালে খাওয়ার চেষ্টা করবেন এতে অনেক উপকার রয়েছে।

ধন্যবাদ-Thanks

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

আর আইটি ফার্মের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url