বিয়ে করার নিয়ম

ছেলেদের লাইফ স্টাইল

বিয়ে করার নিয়ম, আমাদের সবার জীবনের বিয়েকে কেন্দ্র করে কত স্বপ্ন আশা-আকাঙ্ক্ষা  চাওয়া পাওয়া কত কিছু কিন্তু বিয়ে করে সফল হলে সবকিছুই সার্থক ,আর যদি বিয়ে করে ব্যর্থ হয় তাহলে সবকিছুই স্বপ্ন হয়ে রয়ে যায়। 👫👇

image

সূচিপত্র: বিয়ে করার নিয়ম

বিয়ে করলে সবচাইতে বেশি লাভ

আমরা পরীক্ষা দেওয়ার সময় সাধারণত ১০০ মার্কের কোশ্চেন থাকে তার ভীতর ৩৩ পার্সেন্ট মার্ক পেলেই পাস হয়ে যায়। মজার ব্যাপার এই যে শুধু শরীয়ত সম্মত বিয়ের মাধ্যমে আমরা ৫০ পার্সেন্ট মার্ক পেয়ে থাকি।

আরো পড়ুন: ইব্রাহিম আঃ এর বিবাহ

দ্বীনদারী ধার্মিকতা

বিয়েতে ছেলের ক্ষেত্রে দ্বীনদারী ধার্মিকতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সে তার ধর্মীয় বিষয় গুলো কতটা মানে এবং কতটা সচেতন।

ছেলের ক্যারেক্টার

ছেলের ইভটিজিং করে কিনা স্কুল-কলেজের সামনে মেয়েদেরকে উত্তপ্ত করে কিনা সিগারেট বিড়ি গাঁজা এসবের সাথে তার সম্পর্ক আছে কিনা ইত্যাদি।

ফিজিক্যাল স্ট্রং

ছেলের শারীরিক ভাবে সুস্থ নাকি অসুস্থ? ছেলে লেংড়া খোঁড়া কি না? বিয়েতে ছেলে এবং মেয়ে দুজনের মতামত খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

ছেলে কর্মী কি? না!

ছেলে উপার্জন করার ক্ষমতা রাখে কিনা ছেলেকে বড় চাকুরীজীবি হতে হবে সেটা বড় কথা নয়। বড় চাকুরীজীবী হবার যোগ্যতা আছে কিনা সেটা দেখতে হবে।

আরো পড়ুন: বিয়ে করে সম্পদে বারাকা

মেয়ে ছেলেকে পছন্দ করে কিনা

পছন্দের বিষয়গুলো আমাদের ভিন্ন ভিন্ন হয়ে থাকে একেক জনের একেক রকম পছন্দ তাই মেয়ে তার  বর হিসেবে ছেলেকে পছন্দ করে কিনা মেয়ের মতামত অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে এমনকি মত না থাকলে বিয়ের পর অনেক সমস্যা সম্মুখীন হতে পারে।

দ্বীনদারী ধার্মিকতা

আমরা যারা বিয়ে করার জন্য বউ খুঁজছি তারা সবাই বিয়ে করে সফল হতে চাই কেননা বিয়ের মাধ্যমে আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম আগমন ঘটে তাই যদি আপনারা বিয়ে করে সফল হতে চান তাহলে দ্বীনদারী ধার্মিকতা সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। বিয়েতে সফল হবার জন্য এক জন নেককার স্ত্রী যথেষ্ট।

সৌন্দর্য

যখন ভাবি বিয়ে করবো তখনই আমরা সবাই একজন সুন্দরী নারী তলাশ করি। সুন্দর্য সবার মাঝেই আছে কারো ভিতর কালো বাইরে। তবে বাইরের সৌন্দর্য বেশি দিন থাকেনা ভিতরে সৌন্দর্য সারাটি জীবন রয়ে যাই, আমরা আমাদের বিয়েতে ভিতরে সৌন্দর্য কে বেশি গুরুত্ব দেব।

ফ্যামিলি স্ট্যাটাস

একজন মুচির মেয়ে আর একজন স্বর্ণকারের ছেলে বিয়ে হতে পারে কিন্তু সেই বিয়েতে আমাদের সমাজে হিন্দু ,মুসলমান ,খ্রিস্টান ,সব ধর্মেই অনেক সমস্যা সৃষ্টি হয় তাই ফ্যামিলি স্ট্যাটাস বজায় রাখার চেষ্টা করুন।

অর্থ-সম্পদ

আমাদের বর্তমান সমাজে বিয়ে দেওয়া সময় মেয়ের অর্থ-সম্পদ দেখা হয় এটা আপনারা দেখতে পারেন এটা খারাপ কোন কিছু না তবে এগুলো দেখার সময় অবশ্যই অবশ্যই মেয়ের ধার্মিকতা এবং ফ্যামিলি স্ট্যাটাস কে গুরুত্ব দিন।

আরো পড়ুন: আপনার লক্ষ্য কি?

ছেলে মেয়েকে পছন্দ করে কিনা

ছেলে মেয়েকে পছন্দ করে কিনা বিয়ে দেওয়ার আগে ছেলের মতামত নিয়ে নিন। কেননা ছেলেটি সারাটা জীবন একটি মেয়ের সাথে পথ চলবে সেই পথে বিজয়ী হওয়ার জন্য পছন্দের জীবন সঙ্গিনী গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

শেষ কথা

বিয়ের জন্য ছেলে মেয়েকে এবং মেয়ে ছেলেকে পছন্দ করে কিনা তাদের মতামত এবং তাদের এই পথ চলার জন্য গাইডলাইন হিসেবে আমাদের প্রিয় নবী মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর আদর্শ গুরুত্ব দিতে হবে। যা আমাদের বিবাহিত জীবনে ঘুনসুটি আর ভালবাসায় ভরপুর হয়ে থাকবে।

উপরের বিয়ে করার নিয়ম গুলো মেনে বিয়ে করলে আপনি সফল হবেন ইনশাল্লাহ।

[ আলোচনার দশটি বিষয়ে গুরুত্ব দিন বর্ণনা সংক্ষেপে লেখা হয়েছে। বিষয়গুলো সম্পর্কে কে ধারণা দেওয়ার জন্য ]

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

আর আইটি ফার্মের নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url